বামন দুমুখো সাপ

এরা হচ্ছে অতি ক্ষুদ্রাকার এক প্রকারের অন্ধ সাপ। এদের দৈর্ঘ্য সচরাচর ১০.০ থেকে ১২.৫ সেমি ও সর্বোচ্চ ২৩.০ সেমি হয়ে থাকে। এদের নবজাতক প্রায় ৫ সেমি হয়। দেখতে অনেকটা কেঁচোর মত হলেও নলাকার দেহটি খন্ডবিশিষ্ট নয়।

এদের দেহের পুরোটাই ঘনসন্নিবিষ্ট চকচকে আঁশে আবৃত থাকে। বাংলাতে এদেরকে বামন দুমুখো সাপ বা দুমোখো সাপ বলা হলেও। ইংরেজিতে কিন্তু এদের অনেক নাম রয়েছে যেমন, Brahminy Blind Snake, common blind snake, brahminy worm snake.

এদের বৈজ্ঞানিক নাম হচ্ছে Ramphotyphlops braminus এটি মূলত Typhlopidae পরিবারের অন্তর্ভূক্ত একটি প্রাণী। বামন দুমোখো সাপের দেহের উপরের দিক লালচে বাদামি আর নিচের দিক হালকা বাদামি।

এদের মাথা ঘাড় থেকে পৃথক নয়। সরু ক্ষুদ্র চোখগুলো কালো ফোটার মতো। এদের লেজের আগাটি চোখা হয়ে থাকে। এরা সচরাচর মাটির নিচে বসবাস করে উইপোকা ও পিপড়ার ডিম ও লার্ভা খায়।

আদ্রবন, বাগান,কৃষিজমি মানুষের আবাসেও এদের পাওয়া যায়। সবচেয়ে মজার কথা এরা একলিঙ্গিক তাও প্রত্যেকেই স্ত্রী। পুরুষ ছাড়াই বংশবিস্তার করে থাকে এই সাপ। উর্বর ডিম পাড়ে ৩ থেকে ৭টি করে।

তা থেকে কেবল স্ত্রী বাচ্চাই জন্ম নেয়। বাচ্চাদের সাথে মায়ের খুব একটা পার্থক্য থাকে না। প্রায় হুবুহু একি দেখতে হয়ে থাকে মা এবং সন্তানেরা। একে অপরের ক্লোন বলা যায় বা বলতে পারেন নিজেকেই আবার নিজে জন্ম দেয়।

দেশব্যাপি এই সাপের ব্যাপক বিস্তৃতি রয়েছে। এরা সচরাচর দৃশ্যমান, ভারি বৃষ্টিপাতের পর মাটিতে গড়াতে দেখা যায়। এরা সম্পূর্ণ রুপে অবিষধর বা নির্বিষ সাপ। একান্ত প্রয়োজন ও আক্রমনাত্মক প্রাণঘাতি বিষধর সাপের আক্রমণ না হলে সাপ মারা থেকে বিরত থাকুন।

বিষধর হোক বা নির্বিষ এদের দেখলে চলে যেতে দিন। সাপ অত্যন্ত ভিত ও নিরিহ দুর্বল একটি প্রাণী। পালানোর রাস্তা না পেলে তবেই এরা কামড়াতে আসে তাছাড়া নয়। ওদের তাড়িয়ে দিন বা দুরে সরে গিয়ে বন বিভাগের সহায়তা নিন। প্রকৃতির প্রত্যেকটি প্রাণীই মানব জীবনের জন্য মঙ্গল জনক।

লিখেছেনঃ  Iftiker Mahamud

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *